• No products in the cart.
বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইন অনেক বেশি প্রচলিত। গ্রাফিক্স ডিজাইনটি আপওয়ার্কের সর্বাধিক ডিমান্ড অনুযায়ী দক্ষতার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে এখন অনেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে। অন্যান্য বিভিন্ন কাজ গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অনেক বেশি ইনকাম করা যায়। এই কোর্স করতে পারলে চাকরির অনেক সুযোগ রয়েছে।
বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের organization  বা কোম্পানি রয়েছে যেগুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার প্রয়োজন হয়। তেমনি কিছু কোম্পানি হলো- 
  • ওয়েব ডিজাইনিং কোম্পানি
  • Advertising কোম্পানি
  • মার্কেটিং কোম্পানি
  • Game development কোম্পানি
  • Application development কোম্পানি
  • বিভিন্ন national কোম্পানি
  • Multinational কোম্পানি ইত্যাদি
পৃথিবীতে এখন গ্রাফিক্স ডিজাইনের যে পরিমাণ চাহিদা রয়েছে তার তুলনায় অনেক কম সংখ্যাক লোকেরা গ্রাফিক্স ডিজাইনিং কোর্স করে ক্যারিয়ার বানানোর কথা ভাবে। এজন্য এ ক্ষেত্রে কাজ করা লোকের চাহিদা দিন দিন অনেক বেড়ে যাচ্ছে। এ চাকরিতে স্যালারি অনেক বেশি। আপনি যদি ভবিষ্যতে গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অধিক ইনকাম করতে চান তবে আপনিও এই কোর্সটি করে নিতে পারেন। এই কোর্সটি ভালোভাবে সম্পূর্ণ করে অবশ্যই একটি প্রফেশনাল আ্যাডভান্সড কোর্স (Professional Advanced Course) করে নিবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক শব্দটি জার্মান শব্দ থেকে এসেছে। গ্রাফিক শব্দটির অর্থ হচ্ছে চিত্র, ড্রইং বা রেখা (আঁকা)। আর ডিজাইন শব্দের অর্থ নকশা বা পরিকল্পনা। অর্থাৎ, চিত্র দ্বারা নকশা তৈরি করাই হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। মোট কথা, গ্রাফিক ডিজাইন হ’ল টাইপোগ্রাফি, ফটোগ্রাফি, আইকনোগ্রাফি এবং চিত্রের ব্যবহারের মাধ্যমে ভিজ্ঞুয়াল যোগাযোগ এবং সমস্যা সমাধানের প্রক্রিয়া। এক কথায়, গ্রাফিক ডিজাইন হলো, নিজস্ব ধারণা, শিল্প (art) এবং দক্ষতা (skills) ব্যবহার করে ছবি (pictures), শব্দ (words), পাঠ (text) এবং ধারণার মিশ্রণ (combine) করে একটি ভিন্ন এবং নতুন ছবি (picture) বানানো। এ তৈরিকৃত নতুন ছবি বা গ্রাফিক্স বিভিন্ন এডভারটিজমেন্ট, ম্যাগাজিন, বই, ওয়েবসাইট, ক্যালেন্ডার, ব্যবসা কার্ড, কার্টুন, পোস্টার, টি-শার্ট ইত্যাদি সাজানোর জন্য বা ডিজাইন করার জন্য ব্যবহার করা হয়।

গ্রাফিক ডিজাইনারগণ কম্পিউটার সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে বা হাতে কলমে ভিজ্ঞ্যুয়াল ধারণা

তৈরি করে যা ভোক্তাদের অনুপ্রেরণা দেয়, অবহিত করে এবং মোহিত করে। তারা বিভিন্ন আ্যাপ্লিকেশন যেমন- বিজ্ঞাপন, ব্রোশিওর, ম্যাগাজিন এবং কর্পোরেট প্রতিবেদনের সামগ্রিক বিন্যাস এবং উৎপাদন নকশা ডেভেলপ করে।

Graphics design এর কাজ দুভাবে করা যায়। যথা-

  • নিজ হাত দিয়ে।
  • কম্পিউটার সফটওয়্যার (Computer Software) ব্যবহার করে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি বা কাকে বলে বলে? আশা করি সেটা বুঝতে পেরেছেন। এবার এ বিষয় নিয়ে আরও কিছুটা জেনে নিন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন শিখবেন?

যেসব কারণে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা উচিত তার কয়েকটি হলো-

* ফ্রিলান্সিং এবং আউটসোর্সিং করা যায়।

* স্বাধীনতা

* চাকরি করার সুযোগ

* উচ্চ চাহিদা

* কাজের ক্ষেত্র বেশি

* আয়ের পরিমাণ বেশি

* নিজের প্রতিভা বিকাশ

* শিক্ষক হিসেবে কাজ করার সুযোগ

* উচ্চ শিক্ষার প্রয়োজন নেই ইত্যাদি।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে গেলে যে বিশেষ সফটওয়্যার গুলো প্রয়োজন তা নিচে দেওয়া হল:

  1. Adobe Photoshop
  2. Adobe Illustrator
  3. CorelDraw Graphics Suite X5
  4. Adobe In design
  5. Adobe Flash
  6. Corel Paint Shop Photo Pro X3 ইত্যাদি

Graphic design ক্যারিয়ারে চাকরির সুযোগ কেমন?

Graphic design নিয়ে ডিগ্রী শেষ করার পর এবং এ সম্পর্কে দক্ষতা ও জ্ঞান নেওয়ার পর, আপনার জন্য অনেক চাকরির সুযোগ আসবে। যেগুলো আপনি অনলাইন অফলাইন যেকোনো মাধ্যমে করতে পারবেন। তেমনি কিছু হল –

  • Logo designer হিসেবে।
  • নানাধরণের advertisement company তে
  • Web designer হিসেবে।
  • Digital marketing agency তে।
  • Magazine এবং news paper কোম্পানির থেকে।
  • Application and game development কোম্পানি।
  • Media publishing কোম্পানি।
  • Brand identity designer.
  • Animation designer.
  • যেকোনো প্রতিষ্ঠানের ডিজাইনার হিসেবে।
  • ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ।
  • নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা।
  • প্রিন্টিং এবং ডিজাইনিং প্রতিষ্ঠানে।
  • ওয়েব ডেভেলপিং প্রতিষ্ঠানে ইত্যাদি।

এছাড়া আরো অনেক অনেক কোম্পানি এবং ভাগ রয়েছে যেগুলিতে আপনারা গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

এছাড়া কোর্সটি শেষ করার পর আপনি কোর্স কমপ্লিশন সার্টিফিকেটও পেয়ে যাবেন।

কিভাবে জয়েন করবো কোর্সটিতে?

‘Take This Course’ বাটনে ক্লিক করুন। আপনি লার্নিং বাংলাদেশ প্ল্যাটফর্মের পেমেন্ট গেটওয়ে ভিসা/মাস্টারকার্ড বা মোবাইল ওয়ালেট বিকাশ/রকেটের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন।

এর পাশাপাশি যদি আপনি টেকনিক্যাল ইস্যু ফেইস করে থাকেন তাহলে আমাদের পার্সোনাল বিকাশ, নগদ কিংবা রকেটে কোর্স ফি সেন্ড মানি করতে পারেন আপনার মোবাইল নাম্বার রেফারেন্সে উল্লেখ করে।

বিকাশ: +8801711283732  ।  নগদ: +8801711283732  ।  রকেট: +88017112837329

তবে এভাবে ম্যানুয়ালি পেমেন্ট করলে আপনাকে অবশ্যই এই ফর্ম টি পূরণ করতে হবে সঠিক তথ্য দিয়ে।
ফর্ম এ যেতে এখানে ক্লিক করুন পারসোনালি টাকা পাঠানোর পরবর্তী ফর্ম

আমরা ফিরতি কলে আপনার কাছ থেকে বিস্তারিত জেনে এনরোল করিয়ে দিব।

বিস্তারিত জানতে কল করুন

01711283732

Facebook
WhatsApp
LinkedIn
READ MORE
বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইন অনেক বেশি প্রচলিত। গ্রাফিক্স ডিজাইনটি আপওয়ার্কের সর্বাধিক ডিমান্ড অনুযায়ী দক্ষতার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে এখন অনেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে। অন্যান্য বিভিন্ন কাজ গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অনেক বেশি ইনকাম করা যায়। এই কোর্স করতে পারলে চাকরির অনেক সুযোগ রয়েছে।
বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের organization  বা কোম্পানি রয়েছে যেগুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার প্রয়োজন হয়। তেমনি কিছু কোম্পানি হলো- 
  • ওয়েব ডিজাইনিং কোম্পানি
  • Advertising কোম্পানি
  • মার্কেটিং কোম্পানি
  • Game development কোম্পানি
  • Application development কোম্পানি
  • বিভিন্ন national কোম্পানি
  • Multinational কোম্পানি ইত্যাদি
পৃথিবীতে এখন গ্রাফিক্স ডিজাইনের যে পরিমাণ চাহিদা রয়েছে তার তুলনায় অনেক কম সংখ্যাক লোকেরা গ্রাফিক্স ডিজাইনিং কোর্স করে ক্যারিয়ার বানানোর কথা ভাবে। এজন্য এ ক্ষেত্রে কাজ করা লোকের চাহিদা দিন দিন অনেক বেড়ে যাচ্ছে। এ চাকরিতে স্যালারি অনেক বেশি। আপনি যদি ভবিষ্যতে গ্রাফিক্স ডিজাইন করে অধিক ইনকাম করতে চান তবে আপনিও এই কোর্সটি করে নিতে পারেন। এই কোর্সটি ভালোভাবে সম্পূর্ণ করে অবশ্যই একটি প্রফেশনাল আ্যাডভান্সড কোর্স (Professional Advanced Course) করে নিবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক শব্দটি জার্মান শব্দ থেকে এসেছে। গ্রাফিক শব্দটির অর্থ হচ্ছে চিত্র, ড্রইং বা রেখা (আঁকা)। আর ডিজাইন শব্দের অর্থ নকশা বা পরিকল্পনা। অর্থাৎ, চিত্র দ্বারা নকশা তৈরি করাই হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। মোট কথা, গ্রাফিক ডিজাইন হ’ল টাইপোগ্রাফি, ফটোগ্রাফি, আইকনোগ্রাফি এবং চিত্রের ব্যবহারের মাধ্যমে ভিজ্ঞুয়াল যোগাযোগ এবং সমস্যা সমাধানের প্রক্রিয়া। এক কথায়, গ্রাফিক ডিজাইন হলো, নিজস্ব ধারণা, শিল্প (art) এবং দক্ষতা (skills) ব্যবহার করে ছবি (pictures), শব্দ (words), পাঠ (text) এবং ধারণার মিশ্রণ (combine) করে একটি ভিন্ন এবং নতুন ছবি (picture) বানানো। এ তৈরিকৃত নতুন ছবি বা গ্রাফিক্স বিভিন্ন এডভারটিজমেন্ট, ম্যাগাজিন, বই, ওয়েবসাইট, ক্যালেন্ডার, ব্যবসা কার্ড, কার্টুন, পোস্টার, টি-শার্ট ইত্যাদি সাজানোর জন্য বা ডিজাইন করার জন্য ব্যবহার করা হয়।

গ্রাফিক ডিজাইনারগণ কম্পিউটার সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে বা হাতে কলমে ভিজ্ঞ্যুয়াল ধারণা

তৈরি করে যা ভোক্তাদের অনুপ্রেরণা দেয়, অবহিত করে এবং মোহিত করে। তারা বিভিন্ন আ্যাপ্লিকেশন যেমন- বিজ্ঞাপন, ব্রোশিওর, ম্যাগাজিন এবং কর্পোরেট প্রতিবেদনের সামগ্রিক বিন্যাস এবং উৎপাদন নকশা ডেভেলপ করে।

Graphics design এর কাজ দুভাবে করা যায়। যথা-

  • নিজ হাত দিয়ে।
  • কম্পিউটার সফটওয়্যার (Computer Software) ব্যবহার করে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি বা কাকে বলে বলে? আশা করি সেটা বুঝতে পেরেছেন। এবার এ বিষয় নিয়ে আরও কিছুটা জেনে নিন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন শিখবেন?

যেসব কারণে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা উচিত তার কয়েকটি হলো-

* ফ্রিলান্সিং এবং আউটসোর্সিং করা যায়।

* স্বাধীনতা

* চাকরি করার সুযোগ

* উচ্চ চাহিদা

* কাজের ক্ষেত্র বেশি

* আয়ের পরিমাণ বেশি

* নিজের প্রতিভা বিকাশ

* শিক্ষক হিসেবে কাজ করার সুযোগ

* উচ্চ শিক্ষার প্রয়োজন নেই ইত্যাদি।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে গেলে যে বিশেষ সফটওয়্যার গুলো প্রয়োজন তা নিচে দেওয়া হল:

  1. Adobe Photoshop
  2. Adobe Illustrator
  3. CorelDraw Graphics Suite X5
  4. Adobe In design
  5. Adobe Flash
  6. Corel Paint Shop Photo Pro X3 ইত্যাদি

Graphic design ক্যারিয়ারে চাকরির সুযোগ কেমন?

Graphic design নিয়ে ডিগ্রী শেষ করার পর এবং এ সম্পর্কে দক্ষতা ও জ্ঞান নেওয়ার পর, আপনার জন্য অনেক চাকরির সুযোগ আসবে। যেগুলো আপনি অনলাইন অফলাইন যেকোনো মাধ্যমে করতে পারবেন। তেমনি কিছু হল –

  • Logo designer হিসেবে।
  • নানাধরণের advertisement company তে
  • Web designer হিসেবে।
  • Digital marketing agency তে।
  • Magazine এবং news paper কোম্পানির থেকে।
  • Application and game development কোম্পানি।
  • Media publishing কোম্পানি।
  • Brand identity designer.
  • Animation designer.
  • যেকোনো প্রতিষ্ঠানের ডিজাইনার হিসেবে।
  • ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এ।
  • নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা।
  • প্রিন্টিং এবং ডিজাইনিং প্রতিষ্ঠানে।
  • ওয়েব ডেভেলপিং প্রতিষ্ঠানে ইত্যাদি।

এছাড়া আরো অনেক অনেক কোম্পানি এবং ভাগ রয়েছে যেগুলিতে আপনারা গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

এছাড়া কোর্সটি শেষ করার পর আপনি কোর্স কমপ্লিশন সার্টিফিকেটও পেয়ে যাবেন।

কিভাবে জয়েন করবো কোর্সটিতে?

‘Take This Course’ বাটনে ক্লিক করুন। আপনি লার্নিং বাংলাদেশ প্ল্যাটফর্মের পেমেন্ট গেটওয়ে ভিসা/মাস্টারকার্ড বা মোবাইল ওয়ালেট বিকাশ/রকেটের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন।

এর পাশাপাশি যদি আপনি টেকনিক্যাল ইস্যু ফেইস করে থাকেন তাহলে আমাদের পার্সোনাল বিকাশ, নগদ কিংবা রকেটে কোর্স ফি সেন্ড মানি করতে পারেন আপনার মোবাইল নাম্বার রেফারেন্সে উল্লেখ করে।

বিকাশ: +8801711283732  ।  নগদ: +8801711283732  ।  রকেট: +88017112837329

তবে এভাবে ম্যানুয়ালি পেমেন্ট করলে আপনাকে অবশ্যই এই ফর্ম টি পূরণ করতে হবে সঠিক তথ্য দিয়ে।
ফর্ম এ যেতে এখানে ক্লিক করুন পারসোনালি টাকা পাঠানোর পরবর্তী ফর্ম

আমরা ফিরতি কলে আপনার কাছ থেকে বিস্তারিত জেনে এনরোল করিয়ে দিব।

বিস্তারিত জানতে কল করুন

01711283732

Facebook
WhatsApp
LinkedIn
LESS

Course Reviews

3

3
1 ratings
  • 5 stars0
  • 4 stars0
  • 3 stars1
  • 2 stars0
  • 1 stars0
23 STUDENTS ENROLLED